Home Bangla স্বাস্থ্য কিডনির সমস্যা – নষ্ট হওয়ার লক্ষণসূহ

কিডনির সমস্যা – নষ্ট হওয়ার লক্ষণসূহ

140
0
কিডনির সমস্যা - kidney failure

কিডনির সমস্যা হচ্ছে নীরব ঘাতক। চুপিসারে এই রোগ শরীরে বাসা বাঁধলেও এমন এক সময়ে ধরা পড়ে, তখন আর কিছুই করার থাকে না। অধিকাংশ মানুষ জানেনই না তারা কিডনি সমস্যায় ভুগছেন। তাই কিডনি বিকল হওয়ার সাধারণ লক্ষণগুলো যদি জানা থাকে, তবে একটু হলেও সতর্ক হওয়া যাবে।

খাবারে অরুচি

খাবারে অরুচি, বমি বমি ভাব লাগাকে অবহেলা করা যাবেনা।এটাও কিডনি সমস্যার লক্ষণ।

মাংসপেশিতে টান

কিডনিতে ইলেকট্রোলাইট নামের এক ধরনের উপাদান যার ভারসাম্যহীনতার কারণে কিডনির সমস্যা হয়ে থাকে। আর এই উপাদান কমে গেলে মাংসপেশিতে টান বা খিঁচুনির সমস্যা দেখা দেয়।

প্রস্রাবের সমস্যা

প্রস্রাব কম হওয়া, রাতে ঘন ঘন প্রস্রাব হওয়া কিডনি রোগের লক্ষণ। সাধারনত কিডনির ফিল্টার নষ্ট হয়ে গেলে এ রকম হয়।

চোখের চারপাশ ফুলে যাওয়া

যখন কিডনি থেকে বেশি পরিমাণ প্রোটিন প্রস্রাবের সাথে বের হয়ে যায়, তখন চোখের চারপাশ ফুলে যায়।

প্রস্রাবে রক্ত যাওয়া

সুস্থ কিডনি রক্তে থাকা বর্জ্য প্রস্রাবের সাথে বের করে দেয়। কিডনি ক্ষতিগ্রস্থ হলে প্রস্রাবের সাথে রক্তকোষ বের হয়ে যায়। সাধারনত কিডনিতে পাথর ও ইনফেকশন হলে এই সমস্যা দেখা দেয়। এছাড়া প্রস্রাবের সাথে অনেক বেশি ফেনা হলে আশঙ্কা থেকে যায়।

বেশি ক্লান্ত অনুভব হওয়া

কিডনির কার্যকারিতা কমে গেলে রক্তে দূষিত পদার্থ উৎপন্ন হয়। যার কারণে অল্প পরিশ্রমেই ক্লান্ত ও দুর্বল অনুভব হয়।

পায়ের গোড়ালি বা পায়ের পাতা ফুলে যাওয়া

হঠাৎ করে পায়ের পাতা এবং গোড়ালি ফুলে যাওয়া কিডনি ড্যামেজের লক্ষণ।কিডনির কার্যকারিতা কমে গেলে দেহে সোডিয়ামের পরিমাণ কমে যায়। ফলে এই সমস্যা হয়।

ত্বকে র‌্যাশ বা চুলকানি

রক্তে মিনারেল এবং পুষ্টি উপাদানের ভারসাম্যহীনতা দেখা দিলে ত্বকে র‌্যাশ বা চুলকানি হতে পারে। মূলত কিডনি সঠিকভাবে কাজ না করলে এই সমস্যা দেখা দেয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here